১৪ অগাস্ট ২০২০, ০২:৩৮ পূর্বাহ্ন

সিলেট প্রতিক্ষণ
জকিগঞ্জে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে পুলিশের খাঁচায় রহিম মিয়া
tea

জকিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  কথা-বার্তায় বেশ পটু তিনি। কোন মামলার কোন ধারা নিমিষেই গড় গড় করে বলে দিতে পারেন তিনি। বিদ্যেটা খুব বেশি না থাকলেও থানা এবং জেল হাজতে থেকে থেকেই সবকিছু রপ্ত হয়ে গেছে রহিম সাহেবের। কারো কাছে তিনি দালাল আবার কেউ কেউ পাক্কা মামলাবাজ হিসেবে লোকটিকে চিনে বেশ ভালো করেই।

ফলে অনেকেই রহিম সাহেবের কাছ নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করেন। কার্যসিদ্ধি না হলেও প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া রহিম সাহেবের কাছে সময়ের ব্যাপার মাত্র। এবারও অন্যকে মামলায় ফাঁসাতে চেষ্টা চালান রহিম মিয়া। কিন্তু বিধি বাম!

চেষ্টায় বিফল হলে ধরা পরে আসল ঘটনা। আর সেই ঘটনায় নিজে ফেঁসে গিয়ে এখন তিনি নিজেই বন্দি হলেন পুলিশের খাঁচায়। পুরো নাম রহিম মিয়া (৩৬)। পিতা-মৃত : মৃত মনজ্জির আলী। বাড়ি জকিগঞ্জের ভরণ সুলতানপুরে। ২৯ জুলাই বুধবার ঠিক সন্ধ্যাবেলার ঘটনা। রহিম সাহেব ফোন দিলেন থানায়।

ওই পুলিশ সদস্যকে জানালেন সুলতানপুর ইউনিয়নের কাঁচারচকে একজনের বসত ঘরে ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যাবে। চক্রান্তের বিষয়টি আগেই আ্যঁচ করে নেন থানার করিৎকর্মা অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মীর মো. আবদুন নাসের।

তিনি সাথে সাথেই এসআই/নোটন কুমার চৌধুরী, অফিসার মোহন, সঙ্গীয় ফোর্সসহ পাঠিয়ে দেন ঘটনাস্থলে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত সোয়া তিনটায় কাঁচারচক সাকিনের জনৈক মুহিবুর রহমান সাদ্দাম এর বড় ভাই এবং আশপাশের প্রতিবেশিকে নিয়ে মুহিবুর রহমান সাদ্দাম এর ঘর তল্লাশী শুরু করেন। আর ঠিক তখনই রহিম মিয়া জানালার পাশে থাকা মুহিবুর রহমান সাদ্দামের বিছানার নীচে কালো রংয়ের একটি পলিথিনের ব্যাগ ঢুকিয়ে রাখেন।

উপস্থিত লোকজন এ সময় এ সময় চিৎকার শুরু করলে বের হয়ে আসে থলের বিড়াল। আর তখনই বিছানার নীচ থেকে ব্যাগটি তল্লাশী করে ০১ টি রায়ুরোধক কালো পলিব্যাগের ভিতরে ১০০ (একশত) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়। রহিম মিয়াকে শুরু হয় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ।

জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, শিহাব উদ্দিন শিহাব এবং শিল্পী বেগম এর পরামর্শে তাদের দেওয়া ইয়াবা ট্যাবলেট শত্রুতা বশতঃ নিজ হেফাজতে রেখে মুহিবুর রহমান সাদ্দাম কে মাদক মামলায় ফাঁসানোর পরিকল্পনা করা হয়।

পুলিশের নিকট মিথ্যা সাক্ষ্য সৃষ্টি করে, সংঘটিত অপরাধ সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করায় তাদের বিরুদ্ধে জকিগঞ্জ থানার মামলা নং-৪৫, তাং-২৯-০৭-২০২০ খ্রিঃ, ধারাঃ ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১) এর ১০(ক)/৪১ তৎসহ ১৯৩/২০৩ দঃ বিঃ রুজু করা হয়েছে। আসামী রহিম এর বিরুদ্ধে ১। কোতয়ালী মডেল থানার মামলা নং-৩৯, তাং-২৯-১০-২০১৬ খ্রিঃ, ধারাঃ ৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৩৫৪/৪০৬/৪১৭/৫০৬(২)/ ৩২৫/৫০৬ দঃ বিঃ, ২। জকিগঞ্জ থানার মামলা নং-১৭, তাং-২৫-০৫-২০১২ খ্রিঃ, ধারাঃ ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২৪/ ৩০৭/৫০৬/১১৪ দঃ বিঃ, ৩। জকিগঞ্জ থানার মামলা নং-২০, তাং-২৫-০২-২০১৯ খ্রিঃ, ধারাঃ ৩২৮/৩৭৯/৫১১ /৩৪ দঃ বিঃ, ৪। জকিগঞ্জ থানার মামলা নং-১৬, তাং-২১-০৭-২০০৭ খ্রিঃ, ধারাঃ ১৪৩/৩২৩/৪৪৭/৩২৪ দঃ বিঃ মামলা সমূহ বিচারাধীন রয়েছে।

সম্পর্কিত খবর

একটি মন্তব্য করুন

সম্পর্কিত মন্তব্য

img
img
img